চরমপত্র -এম আর আখতার মুকুল

৳ 383৳ 450

In stock

M R Akter Mukul

এম আর আখতার মুকুল

(জন্ম: ৯ আগস্ট, ১৯৩০ - মৃত্যু: ২৬ জুন, ২০০৪) একজন বাংলাদেশী মুক্তিযোদ্ধা যিনি ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় প্রচারিত স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের চরমপত্রের পরিচালক, লেখক ও কথক ছিলেন। 'চরমপত্র' অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যাপক সাহস, উৎসাহ-উদ্দীপনা ও অনুপ্রেরণা যুগিয়েছিল৷
সাংবাদিকতা ক্ষেত্রে অসামান্য অবদানের জন্য ২০০১ সালে তিনি বাংলাদেশ সরকার থেকে স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার লাভ করেন। তিনি একজন কলামিষ্ট৷ তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা ৩৫টি৷
আর আখতার মুকুল ১৯৪৫ সালে দিনাজপুর মহারাজা হাইস্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাস করেন। তিনি দিনাজপুর রিপন কলেজ(ব্রাঞ্চ) থেকে আই এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন ১৯৪৭ সালে৷ ছাত্রজীবনেই রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ায় তিনি ১৯৪৮ সালে জননিরাপত্তা আইনে কারাগারে নিক্ষিপ্ত হন এবং ১৯৪৯ সালে জেলখানা থেকে সাজাপ্রাপ্ত আসামী হিসেবে পরীক্ষা দিয়ে স্নাতক পরীক্ষায় সাফল্য অর্জন করেন৷ ১৯৫০ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন ক্লাসে ভর্তি হন এবং ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন৷[৩] ১৯৫২ সালের ২০শে ফেব্রুয়ারি রাত ১২টার আন্দোলনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার বৈঠকের সময় যে ১১ জন ছাত্রনেতা উপস্থিত হন তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম ছিলেন। অন্যান্যরা ছিলেন ভাষাসৈনিক গাজীউল হক, মুহম্মদ হাবিবুর রহমান, মোহাম্মদ সুলতানা, জিল্লুর রহমান, আব্দুল মোমিন, এস এ বারী এটি, সৈয়দ কামরুদ্দীন হোসেইন শহুদ, আনোয়ারুল হক খান, মঞ্জুর হোসেন, আনোয়ার হোসেন।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় এম আর আখতার মুকুল সাংবাদিকতা পেশায় যোগদান করেন৷ সাপ্তাহিক 'নও বেলাল', 'পাকিস্তান টুডে' , দৈনিক আমার দেশ ও দৈনিক সংবাদ ইত্যাদি পত্রিকায় তিনি কাজ করেন। ১৯৫৩ সালের ২৫শে ডিসেম্বর ইত্তেফাকের জন্মলগ্ন থেকে ১৯৬০ সালের জুলাই পর্যন্ত এই পত্রিকায় রিপোর্টার হিসেবে কাজ করেন৷ ১৯৬১ সালের শেষের দিক থেকে শুরু করে ১৯৭১ সালের এপ্রিল পর্যন্ত এম আর আখতার মুকুল আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা ইউডিআই-এর ঢাকাস্থ সংবাদদাতার দায়িত্ব পালন করেন৷ একই সঙ্গে তিনি ১৯৬৭ সাল পর্যন্ত দৈনিক পত্রিকায় এবং পরে দৈনিক পূর্বদেশেও চাকুরী করেন৷ এম আর আখতার মুকুল ১৯৭১ সালে প্রবাসী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারে যোগদান করে তথ্য ও প্রচার দপ্তরের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন৷ ১৯৭২ সালের জুলাই মাসে তিনি বাংলাদেশ বেতারের মহাপরিচালকের দায়িত্ব পান৷ ১৯৭৫ সালের ১লা জানুয়রি তিনি লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনে প্রেস কাউন্সিলর হিসেবে যোগ দেন৷ ১৯৭৯ সালের শেষের দিকে এম আর আখতার মুকুল দেশে ফিরে আসেন এবং বাংলাদেশ সরকারের কৃষি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব হিসেবে যোগদান করেন৷ ১৯৮৭ সালের আগস্ট মাসে তিনি সরকারি চাকুরী থেকে অবসর গ্রহণ করেন৷

Description

ফ্ল্যাপে লিখা কথা
বেপরোয়া ও অপ্রতিরোধ্য, দুঃসাহসী অথচ সংযত ও সহিষ্ণু ৬৩ বছর বর্ষীয় ‘চির যুবা’ এম আর আখতার মুকুল-সসেই যে ছোটবেলায় বাঙালি ঘরাণার রেয়াজ মাফিক দু’দুবার বাড়ি থেকে পরায়ন-পূর্ব দিয়ে শুরু করেছিলেন জীবনের প্রথম পাঠ-তারপর থেকে আজ অবধি বহু দুস্তর ও বন্ধুর চড়া-উৎরাই, বহু উত্থান-পতন ও প্রতিকূলতার ভেতর দিয়ে যেতে হলেও আর কখনও তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি; রণে ভঙ্গ দিয়ে পিছ পা হননি কোনও পরিস্থিতিতেই। যা আছে কপালে, এখন একটা জেদ নিয়ে রুখে দাঁড়িয়েছেন অকুতোভয়ে। যার ফলে শেষ পর্যন্ত সব ক্ষেত্রেই তার বিজয়ী মুকুটে যুক্ত হয়েছে একর পর এক রঙ্গিন পালক।

জীবিকার তাগিদে কখনও তাকে এজি অফিসে, সিভিল সাপ্লাই একাউন্টস, দুর্নীতি দমন বিভাগ, বীমা কোম্পানিতে চাকুরি করতে হয়েছে। কখনওআবার সেজেছেন অভিনেতা, হয়েছেন গৃহশিক্ষক, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার, বিজ্ঞাপন সংস্থার ব্যবস্তাপনা পরিচালক, সুদূর লন্ডনে গর্মেন্টস ফ্যাক্টরিরর কাটার। প্রতিটি ভূমিকাতেই অনন্য সাফল্যের স্বাক্ষর। কখনও হাত দিয়েছেন ছাপাখান, আটা, চাল কেরোসিন, সিগারেট, পুরানো গাড়ি বাস-ট্রাকের ব্যবসায়। করেছেন ছাত্র রাজনীতি। ১৯৪৮-৪৯ সালে জেল খেটেছেন। জেল থেকেই স্নাতক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। অংশগ্রহণ করেছেন ভাষা আন্দোলনে, হাসিমুখে বরণ করেছেন বিদেশের মাটিতে সাড়ে তিন বছরের নির্ভাসিত জীবন; যখনই যা-কিছু করেছেন, সেটাকেই স্বকীয় মহিমায় সমুজ্জ্বল করে তুলেছেন। সাংবাদিকতা পেশায় নিযোজিত ছিলেন প্রায় দুই যুগের মতো। কাজ করেছেন বেশ কিছু দেশী-বিদেশী পত্র-পত্রিকা ও বার্তা সংস্থায়- বিভিন্ন পদ ও মর্যাদায়। বেশিরভাগ সময় কেটেছে দুধর্ষ রিপোর্টার হিসেবে। সফরসঙ্গী হয়েছেন মেরে বাংলা, সোহরাওয়ার্দী, মওলানা ভাসানী, ইস্কান্দার মীর্জা, আইয়ুব খান, বঙ্গবন্ধু, তাজউদ্দিন ভুট্টোর মতো বড় নেতাদের। সাংবাদিক হিসেবে ঘুরেছেন দুই গোলাধ্র্বের অসংখ্য দেশ। দেখেছেন বিচিত্র মানুষ, প্রথ্যক্ষদর্শী হয়েছেন বহু রুদ্ধশ্বাস চাঞ্চল্যকর ঘটনা প্রবাহের, সাক্সী ছিলেন বহু ঐতিহাসিক মুহূর্তের। বহুমাত্রিক অভিজ্ঞতা সমৃদ্ধ জীবন। বঙ্গবন্ধুর উষ্ণ সান্নিধ্য ও ভালবাসা তার জীবনের এক অবিস্মরণীয় স্মৃতি।

রিভিউ

Submit your review

Reviews

There are no reviews yet.

আরও অফার

No more offers for this product!

দোকানের পলিসি

Shipping Policy

শিপিং পলিসিঃ
১। প্রোডাক্টের অর্ডার স্টক থাকা সাপেক্ষে ডেলিভারি করা হবে। অনিবার্য কারনে পন্যের ডেলিভারিতে বিক্রেতা প্রতিশ্রুত ডেলিভারী সময়ের বেশী সময় লাগতে পারে। 
২। ক্যাশ অন ডেলিভারিতে প্রোডাক্ট অর্ডার করার পর রিফান্ড হলে রিফান্ডের টাকা ফেরতের জন্য আপনার দেয়া বিকাশ নম্বরের ক্ষেত্রে ৩০ কার্যদিবস ও রকেট নম্বরের ক্ষেত্রে ৩০ কার্যদিবসের থেকে বেশি সময়ের মধ্যে টাকা ফেরত দেয়া হবে। 
৩। অর্ডার কনফার্মেশনের পরেও অনিবার্য কারনবশত যেকোনো সময়ে নিশ্চিন্ত ডট কম আপনার অর্ডার বাতিল করার ক্ষমতা রাখে। এক্ষেত্রে অগ্রিম মুল্য প্রদান করা হলে রিফান্ডের প্রয়োজনীয় তথ্য (বিকাশ নং/রকেট নং/কার্ড নং ও অন্যান্য) দেওয়ার পরে সর্বোচ্চ ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে টাকা ফেরত দেয়া হবে। 

ডেলিভারি চার্জ:
✪ ঢাকা মহানগর ( ঢাকা,গাজিপুর,সাভার) ৮০টাকা ,অগ্রিম টাকা প্রদান করলে ৩৫ টাকা যা ক্যাশ অন ডেলিভারীর সময় প্রোডাক্টের মূল্যসহ পরিশোধ করতে হবে!
✪ ঢাকা মহানগর ( ঢাকা,গাজিপুর,সাভার) বাহিরে সারা বাংলাদশে অগ্রিম টাকা প্রদান করলে ৫০ টাকা  এবং ক্যাশ অন ডেলিভারির ক্ষেত্রে  ১০০ টাকা , যা অগ্রীম ২০০ টাকা ডেলিভারী চার্জ বিকাশ করতে হবে ০১৭২২ ৩৮ ৩৬ ৪০(পার্সনাল) নম্বরে এবং অর্ডারটি কনফার্ম করতে হবে।। কুরিয়ার থেকে অথবা ডেলিভারি ম্যানের কাছ থেকে প্রোডাক্ট সংগ্রহের সময় বাকি টাকা পরিশোধ করতে হবে।
* কাস্টমার একাধিক মার্চেন্ট থেকে প্রোডাক্ট অর্ডার করলে অতিরিক্ত ২ দিন সময় লাগতে পারে।
✪ সরাসরি অর্ডার করতে চাইলে ডায়াল করুন ০১৮৪ ২০ ৩০ ৩০০ অথবা
মেইল করুনঃ order@nishchinto.com

Refund Policy

রিফান্ড পলিসিঃ

প্রোডাক্ট গ্রহনের পর প্রোডাক্টের সমস্যার (যেমন : প্রোডাক্ট ভাঙ্গা, ছেঁড়া, ভুল সাইজ, প্রোডাক্ট কাজ না করা, ছবির সাথে প্রোডাক্টের মিল না থাকা ইত্যাদি) ক্ষেত্রে আপনি ক্রয়কৃত প্রোডাক্টটির সম্পূর্ণ মূল্য নিচের শর্ত সাপেক্ষে ফেরত পেতে পারেন।

১) ডেলিভারি গ্রহনের পর সর্বোচ্চ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আপনাকে complain@nishchinto.com এ মেইল করতে হবে অথবা ৯৬৩৯-৩৩৩৮৮৮,০১৮৪২-০৩০৩০০ নাম্বারে কমপ্লেইন রেজিস্টার করতে হবে।

২) রিফান্ডের ক্ষেত্রে প্রোডাক্টটির বাক্স সহ সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় থাকতে হবে।

৩) আপনাকে উক্ত প্রোডাক্টটি নিশ্চিন্ত-এর অফিসে অবশ্যই সর্বোচ্চ  কার্যদিবসের মধ্যে নিজ দায়িত্বে ফেরত পাঠাতে হবে।

বিঃ দ্রঃ

পণ্য ও সার্ভিস সম্পর্কিত কোনো অভিযোগের জন্য আমাদের কমপ্লেইন্ট টীম আপনাকে ফোন করবেন। এ জন্য আপনার অভিযোগটি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আপনাকে আমরা ফোনে সক্রিয় পেতে চাই। আপনার যোগাযোগে দেওয়া নম্বরটি সক্রিয় না থাকলে বিকল্প কোনো নম্বর সক্রিয় থাকতে হবে। রিফান্ডের জন্য আপনাকে টাকাটি ফেরতের মাধ্যম আমাদের জানাতে হবে। আমরা আপনার কোনো প্রকার সহযোগিতা ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে ফোনে অথবা ইমেইলে না পেলে আপনার অভিযোগটি নিস্পত্তি বলে মনে করবো।

Cancellation / Return / Exchange Policy

দ্রষ্টব্য

১। প্রোডাক্টের অর্ডার স্টক থাকা সাপেক্ষে ডেলিভারি করা হবে। অনিবার্য কারনে পন্যের ডেলিভারিতে বিক্রেতা প্রতিশ্রুত ডেলিভারী সময়ের বেশী সময় লাগতে পারে।

২। ক্যাশ অন ডেলিভারিতে প্রোডাক্ট অর্ডার করার পর রিফান্ড হলে রিফান্ডের টাকা ফেরতের জন্য আপনার দেয়া বিকাশ নম্বরের ক্ষেত্রে ৩০ কার্যদিবস ও রকেট নম্বরের ক্ষেত্রে ৩০ কার্যদিবসের থেকে বেশি সময়ের মধ্যে টাকা ফেরত দেয়া হবে।

৩। অর্ডার কনফার্মেশনের পরেও অনিবার্য কারনবশত যেকোনো সময়ে নিশ্চিন্ত ডট কম আপনার অর্ডার বাতিল করার ক্ষমতা রাখে। এক্ষেত্রে অগ্রিম মুল্য প্রদান করা হলে রিফান্ডের প্রয়োজনীয় তথ্য (বিকাশ নং/রকেট নং/কার্ড নং ও অন্যান্য) এবং প্রোডাক্ট ডেলিভারির জন্য কুরিয়ার দেয়ার পর আপনি গ্রহণ না করলে উক্ত কুরিয়ার থেকে প্রোডাক্টটি নিশ্চিন্ত ডট কম এ ফেরত আসার পর সর্বোচ্চ ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে টাকা ফেরত দেয়া হবে।

৪। যে সকল প্রোডাক্টের গায়ে মূল্য লেখা থাকে এবং কোনো কারণে নিশ্চিন্ত ডট কমএর  মূল্য তার থেকে যদি বেশি থাকে, সেক্ষেত্রে অতিরিক্ত মূল্যের ক্ষেত্রে আপনাকে অতিসত্তর ৪৮ ঘন্টার মধ্যে complain@nishchinto.com এ মেইল করে কমপ্লেইন রেজিস্টার করতে হবে। আপনার কমপ্লেইনটি ঠিক হলে আপনার প্রদানকৃত অতিরিক্ত মূল্য ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে বিকাশ অথবা ররকেটের মাধ্যমে ফেরত দেয়া হবে।

পণ্য পরিবর্তন প্রক্রিয়াঃ
  • ডেলিভারি ম্যান থাকাকালীন প্রোডাক্ট চেক করে, ডেলিভারী ম্যানকে টাকা দিবেন।
    ডেলিভারি ম্যান চলে আসার পর কোনো অভিযোগ গ্রহণ করা হবে না, কোনো প্রোডাক্ট চেঞ্জ অথবা রিটার্ন হবে না। কোনো সমস্যা থাকলে ডেলিভারি ম্যান থাকাকালীন ০৯৬৩৯-৩৩৩৮৮৮,০১৮৪২-০৩০৩০০ নাম্বারে কল করে যানান।
  • আমাদের এক্সচেঞ্জ সুবিধাও আছে তবে তা ২৪ ঘন্টার মধ্যে ক্লেইম করতে হবে। এক্সচেঞ্জের সময় ডেলিভারি ম্যানের কাছে নিচের জিনিস গুলো অবশ্যই সঠিক ভাবে বুঝিয়ে দিতে হবে-
    ১। প্রোডাক্ট
    ২। প্রোডাক্টের সাথে প্রদানকৃত বক্স/প্যাকেজিং সামগ্রী
    ৩। বিল/ইনভয়েস
  • যে সকল প্রোডাক্টটের মূল্য ২০০০ টাকার বেশি শুধুমাত্র সেগুলোর ক্ষেত্রে কাস্টমার নিম্নের শর্ত সাপেক্ষে প্রোডাক্টটির রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা পাবে।

১) প্রোডাক্টের সমস্যার (যেমন : প্রোডাক্ট ভাঙ্গা, ছেঁড়া, ভুল সাইজ, প্রোডাক্ট কাজ না করা, ছবির সাথে প্রোডাক্টের মিল না থাকা ইত্যাদি) ক্ষেত্রে আপনি রিপ্লেসমেন্ট পেতে পারেন।

২) প্রোডাক্টটির বাক্স সহ সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় থাকতে হবে।

৩) ডেলিভারি গ্রহনের পর সর্বোচ্চ ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আপনাকে complain@nishchinto.com এ মেইল করতে হবে অথবা ০৯৬৩৯-৩৩৩৮৮৮,০১৮৪২-০৩০৩০০ নাম্বারে কমপ্লেইন রেজিস্টার করতে হবে।

৪) আপনাকে উক্ত প্রোডাক্টটি নিশ্চিন্ত-এর অফিসে অবশ্যই সর্বোচ্চ  কার্যদিবসের মধ্যে নিজ দায়িত্বে ফেরত পাঠাতে হবে।

বিঃ দ্রঃ

পণ্য ও সার্ভিস সম্পর্কিত কোনো অভিযোগের জন্য আমাদের কমপ্লেইন্ট টীম আপনাকে ফোন করবেন। এ জন্য আপনার অভিযোগটি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আপনাকে আমরা ফোনে সক্রিয় পেতে চাই। আপনার যোগাযোগে দেওয়া নম্বরটি সক্রিয় না থাকলে বিকল্প কোনো নম্বর সক্রিয় থাকতে হবে। রিফান্ডের জন্য আপনাকে টাকাটি ফেরতের মাধ্যম আমাদের জানাতে হবে। আমরা আপনার কোনো প্রকার সহযোগিতা ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে ফোনে অথবা ইমেইলে না পেলে আপনার অভিযোগটি নিস্পত্তি বলে মনে করবো।

জিজ্ঞেসা

General Inquiries

There are no inquiries yet.

 প্রশ্ন করুন

শপিং ক্যাটাগরি